Receive up-to-the-minute news updates on the hottest topics with NewsHub. Install now.

জিলহজের প্রথম দশ দিন...-668918

August 12, 2018 1:56 PM
5 0
জিলহজের প্রথম দশ দিন...-668918

এক. তওবা। ইবাদতের ফজিলতপূর্ণ মওসুম শুরু হওয়ার আগেই সঠিকভাবে তওবা এবং আল্লাহর প্রতি ফিরে আসার দৃঢ় প্রত্যয় ও প্রতিজ্ঞা করা বাঞ্চণীয়। বস্তুত তওবার মধ্যে দুনিয়া ও আখেরাতের সমূহ কল্যাণ নিহিত। আল্লাহ তায়ালা বলেন, 'মোমিনগণ! তোমরা সবাই আল্লাহর সামনে তওবা করো, যাতে তোমরা সফলকাম হও।' (সূরা আন-নূর: ৩১)

দুই. দৃঢ় সংকল্প। নেক আমল ও পুণ্যমহিমা দ্বারা বিশেষ মুহূর্তগুলো কাজে লাগানোর দৃঢ় সংকল্প গ্রহণ করা দরকার। আল্লাহর পথে যে প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখে আল্লাহ তাকে অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছার রাস্তাগুলো সহজ করে দেন। আল্লাহ তায়ালা বলেন, 'যারা আমার পথে সাধনায় আত্মনিয়োগ করে, আমি অবশ্যই তাদেরকে আমার পথে পরিচালিত করব।' (সূরা আল আনকাবুত: ৬৯)

৩. রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম একাধিক হাদিসে এই দিনগুলোর ফজিলত ও বিশেষত্ব বলে দিয়েছেন। তিনি এই দিনগুলোকে শ্রেষ্ঠতম দিন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। ইবনে আব্বাস (রা.) এর সূত্রে বর্ণিত, রাসূল (সা.) বলেন, 'জিলহজের এই দিনগুলোতে নেক আমল আল্লাহর নিকট যত প্রিয়, অন্য কোনো দিনে তত প্রিয় নয়। সাহাবিগণ জিজ্ঞেস করলেন, হে আল্লাহর রাসূল! এমনকি আল্লাহর পথে জিহাদের চেয়েও (প্রিয়)? নবী বললেন, হ্যাঁ আল্লাহর পথে জিহাদের চেয়েও, তবে যদি কোনো ব্যক্তি নিজের জান ও মাল নিয়ে আল্লাহর পথে জিহাদে বের অতঃপর এসবের কিছুই নিয়ে না ফিরে।' (বোখারি: ৯৬৯)

তাছাড়া চিন্তা করে দেখুন! এই দশদিনের ভেতরই হলো আরাফার দিন; যেইদিনের গুরুত্ব, মর্যাদা এবং রোজা রাখার ফজিলত সর্বজনবিদিত। তেমনি এই দশদিনের ভেতরেই হলো কোরবানির মহান দিন। হাফিজ ইবনে হাজার আসকালানি (রহ.) কতইনা সুন্দর বলেছেন যে, জিলহজের প্রথম দশদিনের বিশেষত্ব ও বৈশিষ্ট্যের যে কারণ আমার বোধগম্য হয় তা হলো এই যে, এদিনগুলোতে ইসলামের মৌলিক সবকটি ইবাদতের সম্মিলন ঘটে যাওয়া যেমন নামাজ, রোজা, হজ ও সদকা। বস্তুত এছাড়া অন্য কোনো সময় এতগুলো ইবাদত একত্রিত হয় না। (ফাতহুল বারি)

ঘ. সদকা করা। এমনিতেই সদকা একটি মহৎ ও সওয়াবের কাজ। তদুপরি বরকতময় দিনগুলোতে আরও বেশি সদকা করা উচিত। সদকার ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআনে ইরশাদ করেন, 'হে ঈমানদারগণ! আমি তোমাদেরকে যে রুযী দিয়েছি, সেদিন আসার পূর্বেই তোমরা তা থেকে ব্যয় কর, যাতে না আছে বেচা-কেনা, না আছে সুপারিশ কিংবা বন্ধুত্ব। আর কাফেররাই হলো প্রকৃত জালেম।' (সূরা আল বাক্বারাহ: ২৫৪) প্রিয় নবী (সা.) বলেন, 'সদকার কারণে সম্পদ হৃাস পায় না।' (মুসলিম: ২৫৮৮)

উত্স: kalerkantho.com

সামাজিক নেটওয়ার্কের মধ্যে শেয়ার করুন:

মন্তব্য - 0